ঝিনাইদহে অগ্নিদগ্ধ সেই ভিক্ষুককে সদর হাসপাতালে ভর্তি করালেন - যুবলীগ নেতা রাজা - Bangla News 24 Online

BANGLA NEWS 24 ONLINE বাংলা নিউজ ২৪ অনলাইন। Bangla Newspaper বাংলা নিউজ পেপার - BD News 24, BD News Today and Banlga News Today ||

Breaking

Home Top Ad

Thursday, May 14, 2020

ঝিনাইদহে অগ্নিদগ্ধ সেই ভিক্ষুককে সদর হাসপাতালে ভর্তি করালেন - যুবলীগ নেতা রাজা

ঝিনাইদহ সদর উপজেলার পোড়াহাটি ইউনিয়নের বিজয়পুর গ্রামের উত্তর পাড়ায় অগ্নিদগ্ধ বৃদ্ধা ভিক্ষুক জামেনা বেগম (৭০)’র চিকিৎসার ব্যায়ভার নিলেন সদর উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক শাহ মোহাম্মদ ইব্রাহিম খলিল রাজা। 

বসির আহাম্মেদ, ঝিনাইদহ  প্রতিনিধিঃ ঝিনাইদহ সদর উপজেলার পোড়াহাটি ইউনিয়নের বিজয়পুর গ্রামের উত্তর পাড়ায় অগ্নিদগ্ধ বৃদ্ধা ভিক্ষুক জামেনা বেগম (৭০)’র চিকিৎসার ব্যায়ভার নিলেন সদর উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক শাহ মোহাম্মদ ইব্রাহিম খলিল রাজা।

বৃহস্পতিবার সকালে তার বাড়ী  থেকে এনে উন্নত চিকিৎসার জন্য সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অসুস্থ ভিক্ষুক জামেনা বেগম এধরনের সহযোগিতা পেয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। তিনি বলেন, দু’দিন হলো কেউ খবর নেয়নি। রাজাই প্রথম এসে আমাকে সাহায্য করেছে এবং হাসপাতালে এনে চিকিৎসার ব্যাবস্থা করেছে। আল্লাহ তার মঙ্গল করুক। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগ নেতা বিল্লাল হোসেন, যুবলীগ নেতা ইখতিয়ার উদ্দিন, মাহাদি হাসান নাজমুল, হামিদুল ইসলাম, লিখন হোসেন ও সবুর আহম্মেদ। বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও তরুন যুবলীগ নেতা রাজা জানান, গত সোমবার দুপুরে ব্দ্ধৃা জামেনা বেগম ভিক্ষা করে বাড়ীতে আসে।

করোনা থেকে রক্ষা পেতে আগুন জ্বালিয়ে হাত-পায়ে তাপ নিয়ে ঘরে প্রবেশের সময় গায়ের কাপড়ে আগুন লেগে যায়। টের পেয়ে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে আগুন নেভায়। ততক্ষনে তার শরীরের প্রায় ৫০ ভাগ পুড়ে যায়। দু’দিন চিকিৎসার অভাবে যন্ত্রনায় ছটফট করছে জামেনা বেগম। ফেসবুকের মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে ইব্রাহিম খলিল রাজা দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে ভিক্ষুকের বাড়ীতে ছুটে যান।

এসময় তিনি সহযোগিতা করেন। সেই সাথে তার চিকিৎসার সমস্ত ব্যায়ভার গ্রহণ করেন। ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা. আয়ুব আলী বলেন, অগ্নিদগ্ধ বৃদ্ধা ভিক্ষুক জামেনা খাতুনকে আজ সকালে রাজা নামের এক যুবক হাসপাতালে ভর্তি করে। আমি তার খোজ খবর নিয়েছি। তার শরীরের অধিকাংশ আগুনে ঝলসে গেছে। হাসপাতালের পক্ষ থেকে তাকে সকল প্রকার সুযোগ সুবিধা দেওয়া হবে।

No comments:

Post a Comment