বালিয়াকান্দি-নারুয়া সড়কের সেই ব্রীজটি এখন মরণ ফাঁদ - Bangla News 24 Online

BANGLA NEWS 24 ONLINE বাংলা নিউজ ২৪ অনলাইন। Bangla Newspaper বাংলা নিউজ পেপার - BD News 24, BD News Today and Banlga News Today ||

Breaking

Home Top Ad

Sunday, July 12, 2020

বালিয়াকান্দি-নারুয়া সড়কের সেই ব্রীজটি এখন মরণ ফাঁদ

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি থেকে নারুয়া ভায়া পাংশা চলাচলের প্রধান সড়কের শালমারা নিশ্চিন্তপুর এলাকা ব্রীজের মাঝে নিচু হয়ে একপাশ দেবে গেছে।

ফারুক হোসেন, বালিয়াকান্দি প্রতিনিধি ॥ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি থেকে নারুয়া ভায়া পাংশা চলাচলের প্রধান সড়কের শালমারা নিশ্চিন্তপুর এলাকা ব্রীজের মাঝে নিচু হয়ে একপাশ দেবে গেছে। ফলে সদরের সাথে অটো, নসিমন কিংবা ভ্যানযোগেও যাতায়াত বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে। বন্ধ হয়ে গেছে জরুরী যাতায়াতও। বাস, ট্রাকসহ কোন ভারী যানবাহন চলাচল করতে পারছে না।

গত ১৬ এপ্রিল  সকালে ব্রীজটি ফাটলসহ কিছুটা নিচু হয়ে যাওয়ার বিষয়টি দেখতে পান যানবাহন চালকরা। ধারনা করা হয় রাতের কোন একসময় পাথর বোঝাই গাড়ী যাওয়ায় এমনটি হয়। প্রায় ৪ মাস অতিবাহিত হলেও ব্রীজটি আগের অবস্থাতেই রয়েছে। দিন যাচ্ছে ব্রীজটির একপাশ দেবে যাওয়া অংশ আরো দেবে যাচ্ছে।

স্থানীয় এলাকাবাসী ও যানবাহন চালকরা বলেন, বালিয়াকান্দি নারুয়া সড়কের সদর ইউনিয়নের শালমারা বাজার এলাকার ব্রীজের মাঝে ফাটল ও দেবে যায়। বিষয়টি এলাকার লোকজন দেখতে পেয়ে দুঘর্টনার হাত থেকে রক্ষার জন্য বাঁশ দিয়ে বেধে রাখা হয়। ফলে পায়ে হেটে ছাড়া সকল প্রকার যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে পড়েছে। তবে দ্রুত এ ব্রীজটি মেরামতের দাবী জানান তারা। বড় কোন দুঘর্টনা ঘটার আগেই পদক্ষেপ নিতে হবে।

তারা আরো বলেন, ব্রীজটি দেবে যাওয়ার কারণে ওইসব এলাকার মানুষের অনেক পথ ঘুরে যেতে হচ্ছে। এতে মানুষ ও যানবাহন চালকদের ভোগান্তি বাড়ছে। সরাসরি এ সড়ক দিয়ে চলাচল করতে ১৫ টাকা ভাড়া নিলেও এখন ৩০ টাকা করে নিতে হচ্ছে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একেএম হেদায়েতুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি ব্রীজটি পরিদর্শন করে লাল নিশান টাঙ্গানোসহ সাইনবোর্ড স্থাপন করা হয়।
 উর্ধতন র্তপক্ষের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে। আশা করছি দ্রুতই কাজ করা সম্ভব হবে।

উপজেলা প্রকৌশলী আলমগীর বাদশা বলেন, ব্রীজটির বিষয়ে উপজেলা পরিষদের সভায় আলোচনা করা হয়েছে। সাইনবোর্ড ও লাল পতাকা টাঙ্গানো হয়। কে বা কাহারা তা সরিয়ে ফেলেছে। উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে পদক্ষেপ গ্রহন করার জন্য চিঠি প্রেরণ করা হয়েছে।

No comments:

Post a Comment