মধুখালী-বালিয়াকান্দি সড়কের বিল আড়ুলিয়ায় মানুষের ভোগান্তির শেষ নাই - Bangla News 24 Online

BANGLA NEWS 24 ONLINE বাংলা নিউজ ২৪ অনলাইন। Bangla Newspaper বাংলা নিউজ পেপার - BD News 24, BD News Today and Banlga News Today ||

Breaking

Home Top Ad

Monday, September 28, 2020

মধুখালী-বালিয়াকান্দি সড়কের বিল আড়ুলিয়ায় মানুষের ভোগান্তির শেষ নাই

 ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলা হতে বালিয়াকান্দি ভায়া মেগচামী সড়কের ৫ কিলোমিটার রাস্তা ভেঙ্গে যাওয়ায় জনসাধারনের চলাচলে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। 

শাহজাহাান হেলাল,  ফরিদপুর জেলা প্রতিনিধি  ২৮ সেপ্টেম্বর সোমবার ঃ  ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলা হতে বালিয়াকান্দি ভায়া মেগচামী সড়কের ৫ কিলোমিটার রাস্তা ভেঙ্গে যাওয়ায় জনসাধারনের চলাচলে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

 


বিশেষ করে মেগচামী ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ের অদূরে বিল আড়ুলিয়া বাজার সংলগ্ন জায়গায় বড় ধরনের গর্ত হওয়ায় সেখান দিয়ে জনগন কোন যানবাহন নিয়ে যেতে পারছে না। পাশ দিয়ে হেঁটে কোন মতে রাস্তা পার হওয়া যায়। যান বাহন নিয়ে পার হতে যেয়ে অনেকেই দূর্ঘটনায় পতিত হয়েছেন। ছোট খাট দূর্ঘটনা ঘটছে প্রতিনিয়ত। কাঁদাপানির মধ্যে অনেকেই পড়ে গিয়ে পোশাক পরিচ্ছদ নষ্ট করতে হয়েছে। বড় ধরনের দূর্ঘটনা ঘটতে পারে যে কোন সময়। 

এ দূর্ভোগ লাঘবে কেউ এগিয়ে আসছেন না। প্রতিদিন হাজার হাজার জনসাধারন চলাচল করলেও জনপ্রতিনিধি বা এগিয়ে আসছেন সংশ্লিষ্ট বিভাগের কোন কর্তৃপক্ষ। এ স্থান ছাড়াও চরবামুন্দি সাইনবোর্ড এলাকার অদূরে এ রকম আরও একটি গর্ত রয়েছে। সেখানেও কয়েকবার ঘটেছে ছোট কয়েকটি দূর্ঘটনা। 

এর আগে রামদিয়া ছোট ব্রীজের নিকট এলাকায় এ রকম সমস্যার সৃষ্টি হলে সেখানে ট্রাক উল্টে যাওয়াসহ বড় কয়েকটি দূর্ঘটনার পর সে স্থানে মেরামত করার পর সমস্যার সমাধান হয়েছে। এখন চরবামুন্দি ও বিল আড়ুলিয়া নামক জায়গাটি হয়েছে মানষের জন্য মরন ফাঁদ। মাথা ব্যাথা নেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের। একাধিকবার বলেও হয়নি কোন সমাধান। এ রাস্তা দিয়ে চলাচলকারীরা বুঝতে পারছে ভোগান্তি কতদুর । ভোগান্তি লাগভে ভারী যান বাহন  চলাচলে বন্ধ করতে হবে ।

মধুখালী উপজেলা প্রকৌশলী মো. রফিকুল ইসলাম বলেন,  সংস্কার বা মেরামত ফান্ডে বর্তমানে কোন অর্থ বরাদ্ধ নেই। রাস্তাটি টেন্ডার হয়েছে এবং ইতিমধ্যে ঠিকাদার নিয়োগ হয়েছে। খুব শ্রীঘ্রই বামুন্দি বাজার হতে মেগচামীর শেষ সীমানা পর্যন্ত রাস্তার প্রশস্ত ও মেরামতের কাজ শুরু হবে।


No comments:

Post a Comment